Currently set to Index
Currently set to Follow
বই রিভিউ ও ডাউনলোড

আরিফ আজাদের নতুন ৪টি বই পিডিএফ ডাউনলোড – Arif Azad New Book 2021

জনপ্রিয় লেখক আরিফ আজাদ বিয়ের আগে লেখক পরিচয়টা গোপন রেখেছিলেন,এ ঘটনাটা আর এর সত্যতা সবাই জানে।

আসলে ওনার ব্যাপারটা এমনই, ওনার প্রকাশকনার কলিগরাও জানেন না ওনি কে। অথচ একসাথে উঠাবসা কাজ-টাজ করেন প্রায়ই…

লিংক: https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=3319661971590184&id=100006392400189

কিন্তু ফেচবুকের এক পোস্টদাতা লিখেছেন,প্রিয় লেখকের সাথে নামের মিল বিধায়(!) তিনি আরিফ আজাদকে বিয়ে করেছেন এবং বাসর রাতে জানতে পেরে বিস্মিত হন যে,তার হাসবেন্ড আজাদই তার প্রিয় লেখক আজাদ।
এই অংশটা পেয়েছেন কোত্থেকে তার রেফারেন্সটা তাকে জিজ্ঞেস করেও এখনো জানতে পারলাম না।আসলেই বাসর রাতে এমন কথোপকথন হয়েছে নাকি নিজের মতো মশলা মিশিয়ে লিখেছেন তা তো নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।
লেখক আরিফ আজাদকে নিয়ে অনেকেরই তো চুলকানি,তাই ওই অংশে মিথ্যাচারের সন্দেহটা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না কোথায় এটা পেয়েছেন তা না জানা পর্যন্ত।

পোস্টদাতার প্রশ্নের ব্যাপারটায় আসি।আরিফ আজাদ জীবিকা হিসেবে জব করেন।আর লেখালেখি করেন শখের বশে,সেই সাথে দ্বীনী কার্যক্রম হিসেবে।আরিফ আজাদের ইসলাম নিয়ে লেখালেখির ব্যাপারটাকে দুইভাবে দেখা যায়।
১)লেখক ইসলামী ঘরানার বই লিখে দ্বীনের বড়ই উপকার করছেন,ব্যাপক আকারে দাওয়াতের কাজ করছেন,অনেক মডারেট তার লেখা পড়ে দ্বীনকে প্রথমবারের মতো উপলব্ধি করতে শিখছে।এমন ভাবনা দেখা যায় আরিফ আজাদের বই পড়েছে এমন ধর্মপ্রাণ মুসলিমদের মধ্যে।
২)অনেকের ভাবনায় আরিফ আজাদের দ্বীনের দাওয়াতের কাজটা ধরা পড়ে না বা ধরা পড়লেও তার ইসলাম নিয়ে লেখালেখি পছন্দ করেন না।তারা ব্যাপারটাকে দেখেন স্রেফ পেশা হিসেবে।এমন ভাবনা দেখা যায়,মডারেট মুসলিম,সেক্যুলার,এথিয়েস্টদের ক্ষেত্রে।
কোনো দ্বীনদার ধর্মপ্রাণ মুসলিম এতো সচেতনভাবে দ্বীনের প্রসারে তার কার্যক্রমকে এড়ায় যাবেন না,বা এতে ব্যথিত হবেন না।
এখন আরিফ আজাদের বিয়ের ব্যাপারটায় আসি।তিনি বিয়েই করেছেন দ্বীনদারীতা দেখে একজন প্র্যাক্টেসিং মুসলিম মেয়েকে আর আগেই বলেছি,ধর্মপ্রাণ মুসলিম মাত্রই দ্বীনের প্রসারে আনন্দিত হন।
আরেকটা ব্যাপার,আরিফ আজাদ একজন জনপ্রিয় লেখক হলেও তিনি একজন সাধারণ মানুষের মতো জীবনযাপন করেন,যেহেতু তিনি তার পরিচয় গোপন করে লিখেন বিধায় তিনি ব্যক্তিগত জীবনে লেখক হিসেবে পরিচত নন।লেখকের জনপ্রিয়তার ছাপ তার ব্যক্তিজীবনে পড়ে না,বিয়ের আগেও পড়ে নি।তাই,তার জীবনে আসা অপর মানুষের কাছে(যদি আজাদের এ দ্বীনী কার্যক্রমের ব্যাপারে তার হবু স্ত্রীর ভালো লাগা না থাকে) লেখালেখির ব্যাপারটা অবসর সময় কাটানোর মতো নগন্য বিষয় ছাড়া কিছুই না।
ধরেন,আপনি প্রচুর বই পড়েন,বিয়ের পূর্বে উহাও কি বায়োডাটায় লিখে দেন নাকি।ব্যক্তিগত জীবনের কয়টা বিষয় মেয়ে বা তার পরিবারকে জানিয়ে বিয়ের করেন।পোস্টের ভাবখানা এমন যে হবু বউ আর তার ফ্যামিলিকে নিজের প্রাইভিসি বিলিয়ে দিয়ে বিয়ের পিড়িতে বসতে হবে।এটা তো কমনসেন্সের ব্যাপার।

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ বই বের হয় ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে। তখনই সেটা নিয়ে হইচই পড়ে যায়৷ আরিফ আজাদ সে বছর ব্যাপক আলোচিত হন।
ওনি বিয়ে করেছেন ২০১৮ সালে।

আরিফ আজাদের নতুন ৩টি বই এর নাম:

১) জবাব

২) নবী জীবনের গল্প

৩) জীবন যেখানে যেমন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button